[বিষণ্ণতা থেকে মুক্তি] মানসিক অস্থিরতা দূর করে যেসব খাবার

নতুন টিপস ও লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক করুন| আরো পড়তে এখানে ক্লিক করুন| আপনি লিখতে চাইলে এখানে রেজিস্টার করুন | Want to Read and Write in English Language Click Here

[বিষণ্ণতা থেকে মুক্তি] মানসিক অস্থিরতা দূর করে যেসব খাবার

বিষণ্ণতা থেকে মুক্তি, মানসিক অস্থিরতা দূর করে যেসব খাবার। বিষণ্ণতা(Depression) ধীরে ধীরে আমাদের মন থেকে শরীরে প্রভাব ফেলতে শুরু করে। মনের অসুখের দ্রুত চিকিৎসা না করালে ছুটতে হয় শরীর নিয়েও। ঘন ঘন মন খারাপ বা মানসিক অস্থিরতায়(Mental instability) ভুগলে তাই পরামর্শ নিতে হবে মনরোগ বিশেষজ্ঞের। অবশ্য সমাধান দিয়েছেন পুষ্টিবিদরাও। মন খারাপ ভাব কাটানোর জন্য আছে বিশেষ কিছু খাবার(Food)। আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনে সেই সব খাবারের কথাই তুলে ধরা হলো-

বিষণ্ণতা থেকে মুক্তি, মানসিক অস্থিরতা দূর করে যেসব খাবার

ভিটামিন ডি

মানসিকভাবে শক্তিশালী থাকতে ভিটামিন ডি(Vitamin D) ভালো কাজ করে। এই ভিটামিন মেজাজ খিটখিটে হতে বাধা দেয়। কোনও কারণ ছাড়া হতাশা গ্রাস করলে বুঝবেন শরীরে হয়তো ‘ভিটামিন ডি’ এর ঘাটতি আছে। এর অভাব পুষিয়ে নেওয়া যায় সহজেই। দুধ(Milk), কুসুমসহ ডিম, সূর্যের আলো ‘ভিটামিন ডি’ এর জন্য যথেষ্ট। প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সূর্যালোকে থাকার চেষ্টা করুন।

See also  যেসব ফলে দ্রুত ওজন কমে [৬ টি সাধারণ ফল]

ভিটামিন বি-১২

অবসাদ, ক্লান্তি(Fatigue) ইত্যাদি বেড়ে যায় ‘ভিটামিন বি ১২’ এর অভাবে। গড়ে প্রতিটি মানুষের প্রতিদিন ২.৪ মাইক্রোগ্রাম পরিমাণ ‘ভিটামিন বি ১২’ এর দরকার হয়। পনির, কম চর্বিযুক্ত দই(Yogurt), দুধ- এসব ‘ভিটামিন বি ১২’ এর চাহিদা পূরণে বেশি ভূমিকা রাখে। আধুনিক বিজ্ঞান বলে ‘ভিটামিন বি ১২’ আমাদের শরীরে ভালো লাগার হরমোনকে উদ্দীপ্ত করে। ফলে মেজাজ ফুরফুরে থাকে।

ম্যাগনেসিয়াম

মানসিক যেকোনও সমস্যা মোকাবিলায় ম্যাগনেসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ। এটাকে প্রাকৃতিক ব্যাথানাশক বললেও ভুল হবে না। ডার্ক চকলেট, পালং শাক, বাদামে প্রচুর ম্যাগনেসিয়াম(Magnesium) পাওয়া যায়।

ভিটামিন সি

‘ভিটামিন সি’-কে বলা যেতে পারে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার যম। জটিল পরিস্থিতিতে পড়লে আগে এক গ্লাস কমলার জুস খেয়ে দেখা যায়। মাথার ভার অনেকটাই কমে আসবে। মনকে সতেজ ও শক্তিশালী রাখতে ভিটামিন সি(Vitamin C) অনবদ্য।

See also  খালি পেটে চা-কফি কী শরীরের জন্য ক্ষতিকর ?

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*