ব্ল্যাক কফি খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

নতুন টিপস ও লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক করুন| আরো পড়তে এখানে ক্লিক করুন| আপনি লিখতে চাইলে এখানে রেজিস্টার করুন | Want to Read and Write in English Language Click Here

ব্ল্যাক কফি খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

ব্ল্যাক কফি তেঁতো স্বাদের হওয়ায় অনেকেই এটি পছন্দ করেননা আবার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলে ধারণা অনেকের। জনেন কি? এক কাপ কফিতে ৬০ শতাংশ পুষ্টি, ২০ শতাংশ ভিটামিন এবং ১০ শতাংশ খনিজ ও ১০ শতাংশ ক্যালরি আছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, দিনে অন্তত দু’বার চিনি ছাড়া কফি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপাকারি। সকালে ব্রেকফাস্টের পরে এক কাপ এবং সন্ধ্যাবেলায় এক কাপ কফি খাওয়া উচিত। চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি হৃদযন্ত্রসহ দেহের অন্যান্য অংশের উপকার করে থাকে। চলুন জেনে নেয়া যাক চিনিছাড়া ব্ল্যাক কফির চমৎকার কিছু স্বাস্থ্যগুণ-

১. ব্ল্যাক কফি মেটাবলিজম ৫০ শতাংশ বাড়িয়ে দেয় এবং এর সঙ্গে পেটে জমে থাকা চর্বি গলাতে সাহায্য করে। ফলে ব্ল্যাক কফি ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে থাকে।

See also  টিকা নেওয়ার পরও করোনায় আক্রান্ত সাধন পাণ্ডে

২. ব্ল্যাক কফি মনে রাখার ক্ষমতা অনেকখানি বাড়িয়ে দেয় এবং এটি মস্তিষ্ককে সচল রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া এটি নার্ভকেও সচল রাখতে সক্ষম।

৩. চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি হার্ট সুস্থ রাখে।ব্ল্যাক কফি দেহের ইনফ্লামেশন কমিয়ে হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করতে সহায়ক।

৪. ব্ল্যাক কফি ডায়াবেটিকসের ঝুঁকি হ্রাস করে। কফির উপাদানসমূহ ব্লাড সুগার কমিয়ে দেয় এবং মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে।নিয়মিত কফি পানে ৭ শতাংশ ডায়াবেটিকস হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পায়।

৫. যারা প্রতিদিন চার কাপ কফি পান করে তাদের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে কম থাকে।এক গবেষণায় দেখা গেছে ব্ল্যাক কফি ২০% পুরষ এবং ২৫% মেয়েদের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করে।

৬.চিনি ছাড়া কফি খেলে শরীরের ক্ষতিকর বিষাক্ত পদার্থ, ব্যাকটেরিয়া প্রসাবের সঙ্গে শরীর থেকে বের হয়ে যায়। কফি পানে ঘন ঘন প্রসাব হয়। যার ফলে পেট পরিষ্কার হয়ে থাকে।

See also  অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে কেন্দ্রের তৎপরতা, দেখা যাচ্ছে আশার আলো

৭. আপনার মুড যতই খারাপ থাকুকনা কেন, এক কাপ ব্ল্যাক কফি  আপনার মুড ভাল করে দিবে। ক্যাফিন নার্ভ সিস্টেমকে প্রভাবিত করে মনকে খুশি করে দেয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*