শুভেন্দুকে শেষ করতেই নন্দীগ্রামে মমতা – শিশির

নতুন টিপস ও লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক করুন| আরো পড়তে এখানে ক্লিক করুন| আপনি লিখতে চাইলে এখানে রেজিস্টার করুন | Want to Read and Write in English Language Click Here

suvendu adhikari

শিশির অধিকারী কি পরোক্ষে স্বীকার করে নিলেন, নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে তাঁর পুত্র শুভেন্দু অধিকারী হেরে যাবেন?

বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে শিশির অধিকারীর কথোপকথনের যে ভিডিও সামনে এসেছে, সেখানে বর্ষীয়ান সাংসদ বলছেন, ‘ও আমার ছেলেকে ফিনিশ করে দিতে নন্দীগ্রামে প্রার্থী হয়েছে’। শুভেন্দুকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘ফিনিশ’ করবেন কিভাবে? শুভেন্দুর রাজনৈতিক কেরিয়ার ‘ফিনিশ’ হতে পারে একমাত্র যদি তিনি নন্দীগ্রামে হেরে যান। তাহলে কি শিশির অধিকারী মনে করছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর হার অনিবার্য?

বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের দূত হিসাবে লকেট চট্টোপাধ্যায় অধিকারী পরিবারের বাসভবন ‘শান্তিকুঞ্জ’তে গিয়ে শিশির অধিকারীর সঙ্গে দেখা করার পর দুজনের যে কথোপকথন সামনে এসেছে, অর্থাত্‍ যে ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় এবং বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের কাছে আছে, তা নিশ্চয়ই লকেট চট্টোপাধ্যায় বা শিশির অধিকারীর পক্ষ থেকেই ছাড়া হয়েছে। তাহলে এটা আশঙ্কা করার কোনও কারণ নেই, যে অধিকারী পরিবারকে হেয় করতে তৃণমূল শিবির ওই ভিডিও বাজারে ছেড়েছে।

সেই ভিডিওর প্রথমেই দেখা যাচ্ছে লকেট চট্টোপাধ্যায় খেতে খেতে প্রশ্ন করছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন নন্দীগ্রামে দাঁড়ালেন? উত্তেজিত শিশির অধিকারী তার জবাবে বলছেন, শুভেন্দুকে ‘ফিনিশ’ করে দিতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সিদ্ধান্ত।

See also  দলে সুবিধাবাদীদের কোনও জায়গা নেই - মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

খট‌কাটা এখানেই। শিশির অধিকারী কেন বলছেন মমতা শুভেন্দু অধিকারীকে ‘ফিনিশ’ করে দিতেই নন্দীগ্রামে প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন? তাহলে কি অধিকারী পরিবার মনে করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে শুভেন্দু অধিবারীর জেতার কোনও সম্ভাবনা নেই? এবং নন্দীগ্রামে হেরে গেলে শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভবিষ্যতের ভরাডুবি হয়ে যাবে? যেটাকে উত্তেজিত শিশির অধিকারী বলছেন, ও আমার ছেলেকে ‘ফিনিশ’ করে দিতে চাই!

মাননীয় সাংসদ শিশির অধিকারীর বক্তব্যকে যদি বিশ্বাস করে নিতে হয়, অর্থাত্‍ ওই ভিডিওতে তিনি যেটুকু বলেছেন এবং আমরা যেটুকু কানে শুনতে পাচ্ছি, তা যদি মেনে নিতে হয়, তাহলে তো অধিকারী পরিবার মনে করছে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে শুভেন্দু অধিকারীর জেতার কোনও সুযোগ নেই। এবং হেরে গেলে বিজেপি নেতৃত্বের কাছে শুভেন্দু অধিকারীর গুরুত্ব এতটাই কমে যাবে যে তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যত্‍ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। তা না হলে আর কিভাবে শুভেন্দু অধিকারী ‘ফিনিশ’ হতে পারেন?

See also  Abhishek Banerjee: 'বাংলার যুবরাজ অভিষেক', নয়া গান তৃণমূলের!

শিশির অধিকারীর বচন শুভেন্দু অধিকারীর এতদিনের রাজনৈতিক বক্তৃতাকে একেবারে ‘শূণ্যগর্ভ’ করে দেয়। নির্বাচন ঘোষণার আগে নন্দীগ্রামের রাজনৈতিক সভায় গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন প্রথম সেখানে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেন, সেদিন থেকেই আসলে শুভেন্দুর সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ রয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক ঘোষণার পরে বেশ কয়েক ঘন্টা চুপ করে থাকার পর শুভেন্দু রাতের দিকে ট্যুইট করে বলেছিলেন, তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে নন্দীগ্রামে পঞ্চাশ হাজারে হারানোর চ্যালেঞ্জ নিলেন। সেই ট্যুইটে এটা পরিষ্কার ছিল না নন্দীগ্রাম থেকে তিনি নিজে প্রার্থী হবেন কিনা।

কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের ঘোষণা মতো শুধু নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হননি, নিজের পুরানো কেন্দ্র ছেড়েও দেন। অর্থাত্‍ ২০২১ এর এই মহা গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে তৃণমূল নেত্রী একমাত্র পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম থেকেই নির্বাচনে লড়ছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজনৈতিক দাবা খেলায় নিজের ঘুটিকে এগিয়ে দিয়েছেন এটা পরিষ্কার হয়ে যাওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর উপরে চাপ তৈরি হয়ে যায় যাতে তিনি নন্দীগ্রামেই প্রার্থী হন। কারণ তা না হলেই প্রশ্ন উঠত তহলে কি কৃষক আন্দোলনের আঁতুরঘর নন্দীগ্রামে হেরে যাওয়ার ভয়েই শুভেন্দু সেখানে প্রার্থী হলেন না! নিজেকে পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে তুলে ধরতে বা বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীর ‘চয়েস’ হিসাবে প্রমাণ করতে বদ্ধপরিকর শুভেন্দুর পক্ষে এর পরে নন্দীগ্রামে প্রার্থী হওয়া ছাড়া উপায় ছিল না। তাই বিজেপির প্রথম দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণার হওয়ার পর দেখা গেল নন্দীগ্রামে গেরুয়া শিবিরের প্রার্থী তৃণমূলত্যাগী নেতাই।

See also  মনোজ তিওয়ারির পিচে এবার খেলা হবে, শিবপুরে প্রাপ্তন তৃণমূল প্রার্থী বঙ্গ অধিনায়ক

রাজনৈতিক চাপ সামলাতে না পেরে নন্দীগ্রামে প্রার্থী হলেও অধিকারী পরিবার কি আসলে আশঙ্কিত? তা না হলে কেন শিশির অধিকারী বলবেন নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে মমতা শুভেন্দুকে ‘ফিনিশ’ করে দিতে চাই? আমরা তো এতদিন জেনে এসেছি, বা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে শুনে এসেছি তিনি অনায়াসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নন্দীগ্রামে হারিয়ে দেবেন! শিশির অধিকারীর কথা শুনলে কি বিশ্বাস করে নিতে হবে যে শুভেন্দু অধিকারী যা বলছেন তা আসলেই বাগাড়ম্বর। অধিকারী পরিবার জানে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয় অনিবার্য এবং তাহলে শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক কেরিয়ার ‘ফিনিশ’?

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*