ফিনফিনে শাড়িতে শ্রীলেখা তোলপাড় করলেন নেটদুনিয়া

Sreelekha Mitra

ফিনফিনে শাড়ি জড়িয়েছে শরীর। আলুথালু চুল। জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে লেন্সের দিকে তাকিয়ে। ‘মধুবালা’ হয়ে উঠেছিলেন শ্রীলেখা মিত্র। এক দশক আগের সেই স্মৃতি রবিবারের মেঘলা সকালে নেটমাধ্যমে সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিলেন অভিনেত্রী। অতীত বিবরণীতে লিখেছেন, ‘নতুন করে মধুবালা লুক তৈরি করেছিলাম।’

১৯৪০-এর দশকের শেষ দিকে নায়িকা হিসেবে বলিউডে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন মধুবালা। এত বছর পরেও তাঁর অভিনয় দক্ষতা এবং সৌন্দর্য চর্চার বিষয়। ‘মুঘল-এ-আজম’, ‘চলতি কা নাম গাড়ি’, ‘মহল’-এর মতো একাধিক ছবিতে কাজ করেছিলেন মধুবালা। বলিউডের চিরকালীন অগ্নিশিখা হিসেবেই মনে রখা হয় তাঁকে।

নেটমাধ্যমে শ্রীলেখার জনপ্রিয়তাও দেখার মতো। অভিনেত্রীর অনুরাগীর সংখ্যাও তাক লাগানো। বলিউড সুন্দরীর অবতারে শ্রীলেখাকে দেখে মুগ্ধ তাঁর অনুরাগীরাও। কেউ তাঁকে ‘লবঙ্গলতিকা’ নামের মিষ্টির সঙ্গে তুলনা করছেন, কেউ আবার ‘ছোটবেলার ক্রাশ’ লিখে নিজের মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন। ইতিমধ্যেই ১১ হাজারের বেশি নেটাগরিক পছন্দ করেছেন শ্রীলেখার এই ছবি।

পর্দা থেকে এই মুহূর্তে দূরে শ্রীলেখা। তবে নেটমাধ্যমের দৌলতে বার বার চর্চায় উঠে আসেন তিনি। দিন কয়েক আগেই এমনই পুরনো স্মৃতি তুলে এনেছিলেন শ্রীলেখা। আরও একটি ছবি দিয়েছিলেন ইনস্টাগ্রামে। বব কাট চুলে দুধ সাদা জামা প্যান্ট পরে লাল চেয়ারের উপরের পা রেখে ক্যামেরার সামনে পোজ দিয়েছিলেন। তখনও নিজেদের মতামত ব্যক্ত করতে অভিনেত্রীর ছবির মন্তব্য বাক্সে ভিড় জমিয়েছিলেন নেটাগরিকরা।

যখন যেমন ইচ্ছে, তখন তেমন ছবি অনায়াসে ভাগ করে নেন অনুরাগীদের সঙ্গে। শারীরিক গঠন বা রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে কে কী খোঁচা দিল, সে সব নিয়ে কখনওই ভাবেন না অভিনেত্রী।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.