আপনি ব্যবসা করতে চান, তাহলে কেন্দ্রের সঙ্গে শুরু করুন ব্যবসা দুই থেকে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত সাহায্য পাবেন

জন ঔষধি কেন্দ্র যোজনা কি

 

বর্তমান দিনে চাকরির যে অবস্থা তাই সবাই নিজের ব্যবসা শুরু করতে চাইছে। কিন্তু সবাই তো আর ব্যবসা করতে চাইলেই হবে না এর জন্য প্রয়োজন টাকা। এবং কি ব্যবসা করবে তার সঠিক ধারণা আপনার যদি না থাকে। তাহলে কোন ব্যবসা করতে চান এর সঠিক ধারণা নিতে চান তাহলে এই নিবন্ধটি অবশ্যই পড়বো।

আমরা সবাই দেখতে পাচ্ছি করোনার পরে মেদিক্যাল সেক্টর গুলির চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাহলে আপনি এই ব্যবসা বেছে নিতে পার। প্রতিটি মানুষের সুবিধার অসুবিধার জন্য ওষুধের প্রয়োজন। তাই ওষুধ সহজলভ্য ভাবে দেওয়ার জন্য ‘প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় জন ঔষধি কেন্দ্র’ খোলার সুবিধা দিচ্ছে। আর এর জন্য আপনি সরকারের কাছ থেকে সাহায্য পাবেন।

জন ঔষধি কেন্দ্র যোজনা কি

একটি প্রতিবেদনে দেখা গেছে 2024 সালে ভারতের মধ্যে প্রায় দশ হাজারেরও বেশি প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় জন ঔষধি কেন্দ্র খোলা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এই প্রধানমন্ত্রী জন ঔষধি কেন্দ্র হল এমন একটি প্রকল্প যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ বাজার থেকে অনেক কম দামে ওষুধ পাবেন।

ভারতের মধ্যে প্রায় 5 থেকে 6 হাজারের বেশি এই প্রকল্প কেন্দ্র চালু হয়েছে। এবং অনেক মানুষ এই প্রকল্প খোলা পরিকল্পনা নিচ্ছে। এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য বেশি টাকার প্রয়োজন হবে না। আপনার যত টাকা খরচ হবে সরকার আপনাকে পর পর ফেরত দিয়ে দে। এবং এই প্রকল্প বসানোর জন্য আপনাকে প্রতিমাসে কমিশন দেওয়া হবে।

এই ঔষধি কেন্দ্র কারা খুলতে পারবেন

এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য সরকার তিনটি ভাগ তৈরি করেছে

১. এই বিভাগে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে কোন ব্যক্তি কিংবা ডাক্তার  এই ঔষধি কেন্দ্র খুলতে পারেন

২. এছাড়াও আপনারা ট্রাস্ট বা এনজিও এবং প্রাইভেট হাসপাতাল খুলতে পারেন।

৩.  আপনাদের এই কেন্দ্র খোলার জন্য আপনাদের ডি ফার্মা বি ফার্মার  ডিগ্রী থাকতে হবে।

৪.  আপনি যখন এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করবেন তখন এই ডিগ্রী গুলি জমা দিতে হ…

৫.  এছাড়াও যারা SC ,ST এবং যারা শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী তাদের জন্য সরকার অগ্রিম 50000 টাকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন.

 আপনারা এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য কত টাকা পাবেন

এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য আপনাকে সরকার দুই থেকে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত সাহায্য করবেন। এছাড়া আপনি 15 থেকে কুড়ি শতাংশ লাভ রাখতে পারবেন। এছাড়া আপনি প্রতিমাসে 15  শতাংশ  ইনসেনটিভও পাবেন। আপনাদের ইনসেনটিভও প্রতি মাসে 10 হাজার টাকা করে নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু কিছু কিছু রাজ্যগুলিতে এর সর্বোচ্চ সীমা 15 হাজার টাকা করা হয়েছে।

 প্রথমে আপনাদের জানিয়ে রাখি এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য আপনাকে প্রথমে এক লাখ টাকার ওষুধ কিনতে হবে। পরে পরে এই টাকা সরকার পরিশোধ করবে। এছাড়াও আপনার ডেস্ক,ফ্রিজ ইত্যাদি কেনার জন্য  সরকার আপনাকে এক লাখ টাকা দেবে। এই ঔষধি কেন্দ্র খোলার জন্য আপনার যদি কম্পিউটার ইত্যাদি দরকার থাকে সে ক্ষেত্রে সরকার আপনাকে আরও 50 হাজার টাকা দেবে। 


প্রতিবেদন

এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য ধ্যনবাদ । এই পেজটি ও ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনারদের বন্ধু বান্ধবদের জানান । ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন । ধন্যবাদ এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য । 

 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.