মাংকিপক্সে থাকাকালীন যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যু

মাঙ্কিপক্স

ভারতে মাঙ্কি পক্সের পাঁচটি কোস পাওয়া গেছে। মাংকিপক্সের মতো উপসর্গ থাকাকালীন যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে উপাচার্য তদন্তের কথা জানালেন। বীণা জর্জ কেরলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই নির্দেশ দিলেন। কেরলের থিসুর জেলার চাভাক্কড়ের বাসিন্দা মৃত ওই যুবক। 

বিদেশে মাঙ্কি পক্স পরীক্ষায় তার পজেটিভ রেজাল্ট এসেছিল। এনসেফেলাইটিস এবং খুবই ক্লান্ত বোধ করায় জন্য থিসুরে চিকিৎসা নেন তিনি। মাঙ্কি পক্স কোন মরণ ভাইরাস নয় মনে করেন কেরালা স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ওই যুবকের চিকিৎসায় কেন দেরি হল সেই বিষয়ে তদন্ত করা হবে। 

যুবকের গতিবিধি ও সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের নিয়ে একটা রুটম্যাপ তৈরি করা হয়েছে।  যুবকের সংস্পর্শে আসা  সমস্ত ব্যক্তিদের আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে। 

ভারতে এখনও পর্যন্ত মাঙ্কিপক্সের পাঁচটি কেস পাওয়া গেছে ও এর মধ্যে তিনটি কেরলের।  আর একটি দিল্লির এবং অপর একটি অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্টুরের। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সতর্কতা রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

বিদেশ সফরে মাঙ্কি পক্সের কোনো রেকর্ড নেই। তবুও একজনকে মাংকি পক্স এর উপসর্গে সন্দেহ করা হয়। এক জনের হদিস মিলেছে হিমাচল প্রদেশে। মাঙ্কিপক্স সংক্রমণ হয়েছে কি না জানতে নমুনা গিয়েছে পুনের (Pune) ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি-তে।রিপোর্ট এলেই এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ব্যক্তির দেহে অন্তত ২১ দিন আগে মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ দেখা যায়। এখন সুস্থও হয়ে উঠছেন । তবে তাকে এখন সুস্থতার খাতিরে আইসোলেশনে রাখা হয়। ওই এলাকায় নতুন কোনও সংক্রমণের ঘটনা ঘটছে কিনা, সেটাও কড়া নজরে রেখেছে প্রশাসন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *