|

বঙ্গে ২৩ টি জেলা থেকে হঠাৎ করে ৩০ টি জেলার সিদ্ধান্ত কেন জেনেনিন বিস্তারিত

মমতা ব্যানার্জি

রাজ্য সরকার বলছে সাতটি যে নতুন জেলা হছে তার প্রধান কারণ হল আয় বাড়ানো। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোমবার । সোমবার  মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে বলেন ” রাজ্যে আরও সাতটি নতুন জেলা হছে।

মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করা সাতটি নতুন জেলা হল – ১. রানাঘাট, ২. বহরমপুর, ৩. বসিরহাট , ৪.  সুন্দরবন, ৫. ইছামতী, ৬. বিষ্ণুপুর, ৭. কান্দি

রাজ্য সরকার বলছে সাতটি যে নতুন জেলা হছে তার প্রধান কারণ হল আয় বাড়ানো। তাই সাতটি নতুন জেলা বাড়ানের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য। নতুন সাতটি জেলা বাড়ানোর পর ২৩ টি জেলা থেকে ৩০ টি জেলা হল। রাজ্য সকার বলছে জেলা বাড়ানোর মূল কারণ হল  আয়ের পরিমান বাড়বে। এই  সাতটি নতুন জেলা তৈরি হলে কেন্দ্র থেকে আলাদা টাকা আসবে। ফলে রাজ্য আরও উন্নত হবে এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক প্রকল্পের জন্য টাকা আসবে কেন্দ্র থেকে।

রাজ্য সরকার আরও মনে করছেন যদি জেলা ভাগ হয় তাহলে জেলা গুলি অনেক উন্নত হবে। এছাড়াও জেলা গুলি তে প্রশাসন কাজের গতি বাড়াবে। সাধারণ মানুষের কাছে আরও অনেক নতুন প্রকল্প নিয়া আসবে সরকার। এছাড়াও জেলার অনেক শিক্ষিত বেকার ছেলে মেয়ে সরকার দপ্তরে কাজ পাবে বলে মনে করা হছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় রাজ্য যে নতুন সাতটি জেলা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়াছেন। তাতে বিরোধী শুভেন্দু আধিকারী সমালোচনা করতে ছাড়েনি। শুভেন্দু আধিকারীর বলছেন  ”আইএএস -আইপিএসদের বাংলায় ধরে রাখার জন্যই মুখ্যমন্ত্রীর এই পদক্ষেপ। তবে কোনও লাভ হবে না। আগে রাজ্যের নাম পরিবর্তন সহ অনেক কিছু ঘোষণা করেছেন। একটিও বাস্তবায়িত হয়নি। IAS-IPS দের বাংলায় ধরে রাখার ব্যাপারেও মমতা বন্দোপাধ্যায়ের লক্ষ্যপূরণ হবে না।”

আমাদের রাজ্যর লোকসভার আসন সংখ্যা ৪২ টি । কিন্তু আমাদের জেলার সংখ্যা অনেক কম। আমাদের রাজ্যরে প্রতিবেশী দুটি রাজ্য বিহার ও উড়িশার জেলা সংখ্যা বেশি। কিন্তু বিহার ও উড়িশা রাজ্যের আসন সংখ্যা কম।পশ্চিমবঙ্গের লোকসভার আসন সংখ্যা যেখানে ৪২ টি উড়িশার লোকসভার আসন সংখ্যা সেখানে মাত্র ২১ টি। কিন্তু উড়িশার  জেলার সংখ্যা ৩০ টি। এছাড়াও বিহারের লোকসভার আসন সংখ্যা ৪০ টি কিন্তু জেলার সংখ্যা ৩৮ টি।

সোমবার  মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে বলেন ” রাজ্যে আরও সাতটি নতুন জেলা হছে। রাজ্য সরকার বলছে সাতটি যে নতুন জেলা হছে তার প্রধান কারণ হল আয় বাড়ানো। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে


প্রতিবেদন

এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য ধ্যনবাদ । এই পেজটি ও ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনারদের বন্ধু বান্ধবদের জানান । ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন । ধন্যবাদ এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য । 

 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *