|

আপনার শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়াতে চান তাহলে নিয়মিত এই খাবারগুলি খাওয়ান

শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়াতে চান

আপনার শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়াতে চান তাহলে নিয়মিত এই খাবারগুলি খাওয়ান। একজন শিশুকে ছোট থেকেই পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানো দরকার। এ থেকে তার শরীরের এবং মানসিক দিক থেকে সুস্থ থাকবে। যদি শিশুর ছোট বয়স থেকেই পুষ্টিকর খাবার না দেয়া হয় তাহলে তার শারীরিক এবং মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।তাই সঠিক বিকাশের জন্য অবশ্যই শিশুর শরীরের পুষ্টির প্রয়োজন।

আপনার শিশুর স্মৃতিশক্তি বাড়াতে চান তাহলে নিয়মিত এই খাবারগুলি খাওয়ান

ইউনিসেফ জানাছে যে শিশুর বয়স তিন থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে শিশুকে খাবারের সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। কারণ এই সময় থেকে শুরু হয় শিশুদের শরীরিক এবং মানসিক বিকাশ। শিশুদের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির জন্য ছোট থেকেই তাদের খাবারের বিষয়ে সচেতন হওয়া উচিত । এবং শারীরিক দিক থেকে একটা শিশুকে সুস্থ রাখার জন্য অবশ্যই ছোটবেলা থেকে পুষ্টিকর খাদ্য দেওয়া উচিত । তাই আমরা জানবো আজকের শিশুদের স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য কি কি খাবার খাওয়া প্রয়োজন।

ডিম ও মাছ 

 মস্তিষ্ক গঠনের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিড। শরীরে অবশ্যই এই ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিড  থাকা অবশ্যই জরুরি। শিশুদের  বাড়িতে যদি আমিষ খাবার খায় তারা কিন্তু ছোটবেলা শিশুদের অবশ্যই মাছ মাংস ডিম খাওয়ানো দরকার। ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিড শিশুদের শরীরে থাকলে শিশুদের স্মৃতিশক্তি অনেকটা প্রখর হয়। 

ডিম ও মাছ

 বীচ ও বাদাম

শিশুদের মাচ ডিম মাংস খাওয়ানোর পাশাপাশি কোনভাবে বাদাম ও বীজ খাওয়ানো যায় তাহলে খুব ভালো।  এগুলোতেও ওমেগা থ্রি থাকে প্রচুর পরিমাণে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে ।

বীচ ও বাদাম

 

 

শাকসবজি

 শিশুকে মাছ মাংস ডিম খাওয়ার পাশাপাশি তাকে অবশ্যই নানা ধরনের শাক সবজি খাওয়ানো উচিত। কারণ শাকসবজিতে অনেক ধরনের ভিটামিন থাকে।যা মস্তিষ্কের পক্ষে খুব ভালো। বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি যতটা সম্ভব জলে সেদ্ধ করে ওই সেদ্ধ করা শাকসবজি  বাচ্চাদের খাওয়ানো উচিত। এর ফলে শিশুদের শারীরিক ও মানসিক শক্তি বৃদ্ধি পাবে

শাকসবজি

 

 বিভিন্ন ধরনের ফল

 শিশুদের শাকসবজি খাবানোর সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন ফল খাওয়ানো দরকার। শিশুদের বিভিন্ন ধরনের বেরি জাতীয় ফল খাওয়ানো উচিত ।।এই বেরি জাতীয় ফলে ভিটামিন, আয়র্‌ ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়া্‌ পটাশিয়াম, ফসফরাস এর মতো অনেক উপাদান আছে যা মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ছোট থেকেই শিশুদের এই ফলগুলি খাওয়ানো উচিত।

বেরি জাতীয় ফল

ওটস

 এই ওটসে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার আছে এবং শরীরে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। এবং পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে শরীরে পক্ষে অনেক উপকার। শরীরের জন্য উপকারী ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বাড়ায় ওটস। তাই নিয়মিত শিশুদের এই ওটস খাওয়ানো উচিত। 

ওটস


প্রতিবেদন

এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য ধ্যনবাদ । এই পেজটি ও ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনারদের বন্ধু বান্ধবদের জানান। আমাদের ফেসবুক পেজ ফলো করুন । আমাদের প্রতিবেদনটি  ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন । ধন্যবাদ এই প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য । 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *