|

স্ত্রীদের কয়েকটি কুঅভ্যাসের কারণে দাম্পত্য জীবন নষ্ট হয়ে যায়

স্বামী-স্ত্রী

সবাই বিয়ে করে শান্তিতে একটা সংসার করবে বলে। দুজন দুজনের সারা জীবনের সঙ্গী হয়ে থাকা। একে অপরকে মানিয়ে নেওয়া। এইগুলি হলেও সাংসারিক জীবনে একটা বড় অধ্যায়। 

বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কিছু না কিছু খুঁটিনাটি লেগেই থাকে।এই ছোটখাটো ঝগড়াতে কারোর না কারোর দোষ থাকে।এই দোষ যে সব সময় ছেলেদের হবে  তাই নয়। মেয়েদেরও কিছু কুঅভ্যাস আছে যা দাম্পত্য জীবনকে নষ্ট করে।তাই আজ আমরা আলোচনা করব স্ত্রী হিসেবে স্বামীর প্রতি কি আচরণ করা উচিত নয়। 

স্ত্রীর কয়েকটি কুঅভ্যাসের কারণে নষ্ট হয়ে যায় দাম্পত্য জীবন তাই আজই ত্যাগ করুন এই আচরণগুলো

সন্দেহ করা  

সন্দেহ এমন একটা জিনিস যা কোনো মানুষের মধ্যে সম্পর্ক নষ্ট করে দিতে পারে বা মুহূর্তের মধ্যে সম্পর্ক ভেঙে দিতে পারেন ।বিশ্বাস হলো যেকোনো সম্পর্কের মজবুত ভিত্তি।কিন্তু জীবনে এমন একটা সময় চলে আসে যখন স্ত্রীরা স্বামীদের প্রতি সন্দেহ করতে শুরু করে। ধরো  কোন স্বামীর বান্ধবী আছে তার সঙ্গে সে যখন দেখা করতে যায় ফোনে কথা বলে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে তাদের মধ্যে রিলেশন আছে তারা একজন ভালো বন্ধু হতে পারে। তাই অযথা স্বামীকে সন্দেহ করা যাবে না। অনেক স্ত্রী আছে তার স্বামী অন্য কোন রিলেশনে নেই  তাও তার মোবাইল সবসময় চেক করে। স্বামীর মোবাইল চেক করা মানে তাকে সন্দেহ করা স্বামীকে সন্দেহ করা মানে স্বামীর প্রতি বিশ্বাস হারানো। স্ত্রীর এই অভ্যাস গুলোর কারণে অনেক সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। 

অধিক চাহিদা 

 সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার আরো একটি মূল কারণ হলো অধিক চাহিদা। কারণ কিছু কিছু মেয়ে আছে যারা বিয়ের পর তাদের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। ধরো সংসারে একটা সময় অনেক টানাটানি চলছে সেই সময় স্ত্রী বায়না করে বসে তার এই জিনিস দরকার।আর স্বামী এনে দিতে না পারলে শুরু হয়ে যায় সংসারে অশান্তি।কিছু কিছু মেয়ে আছে যাদের হাত খরচ অনেক বেশি। তাকে জানা উচিত তার স্বামীর ক্ষমতা কত সেই মতন তাকে খরচ করে চলতে হবে। আর না হলে শুরু হয়ে সংসারে অশান্তি। এই অভ্যাস গুলোর কারণে গত সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। মেয়েদের এই অভ্যাসগুলো ত্যাগ করতে  হবে। 

অন্যের সঙ্গে স্বামীর তুলনা 

 অনেক স্ত্রী আছে যার স্বামীকে সবসময় অন্য কারো সঙ্গে তুলনা করে। কোন স্বামী চায়না তার স্ত্রী তাকে অন্য কারো সংগে তুলনা  করুক। কারণ এই সমাজে কোন পুরুষই চায় না যে অন্য কারো সঙ্গে তার তুলনা হোক। সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক। স্ত্রীদের মনে রাখা উচিত প্রতিটি মানুষ নিজের মধ্যে আলাদা। অন্য কোন ব্যক্তি যতই ভালো হোক না কেন সে আপনার স্বামী জায়গা কোনদিন দিতে পারবে না। 

 তাই সমস্ত স্ত্রীদের এই সমস্ত আচরণগুলো কে পাল্টাতে হবে। অযথা স্বামীকে সন্দেহ করা যাবে না। সংসারে যে রকম আছে সে রকম খরচ করা উচিত। এছাড়া বিশেষ করে স্বামীকে অন্য কারো সঙ্গে তুলনা করে খোটা দেওয়া উচিত নয়। 

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.